রাজশাহীতে ওয়াকিটকিসহ ভুয়া পুলিশ গ্রেপ্তার

0
35
ওয়াকিটকিসহ এক ভুয়া পুলিশ উপ-পরিদর্শককে (এসআই) গ্রেপ্তার করেছে রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানা পুলিশ।
সংগৃহীত ছবি ।

অনলাইন ডেস্কঃ ওয়াকিটকিসহ এক ভুয়া পুলিশ উপ-পরিদর্শককে (এসআই) গ্রেপ্তার করেছে রাজশাহী মহানগরীর রাজপাড়া থানা পুলিশ।

গত শুক্রবার (২৫ মার্চ) দিবাগত রাত পৌনে ১১টার দিকে নাটোরের নলডাঙ্গা থানার হলুদঘর গ্রামের নিজ বাড়ি থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। এসময় ওই প্রতারকের কাছ থেকে ৩ টি ওয়াকিটকি সেট, ১ টি চার্জার, প্রতারণার কাজে ব্যবহৃত ২ টি মোবাইল ফোন ও নগদ টাকা উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃত প্রতারকের নাম মো. জাকির হোসেন (৫২)। সে ওই গ্রামের মো. সুরমান আলীর ছেলে। আজ শনিবার (২৬ মার্চ) বিকালে রাজশহী মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেল থেকে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়- আজিজুর রহমান নামের এক ব্যক্তির রাজশাহী মহানগরীর বিনোদপুর চৌদ্দপাই (বিহাস গেট) এলাকায় খান অটো এন্ড ব্যাটারী হাউজ নামের একটি দোকান রয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) বেলা ১১টায় আজিজুর রহমানের দোকানে এক ব্যক্তি নিজেকে রাজশাহী জেলা পুলিশ লাইন্সে কর্মরত পুলিশের এসআই মো. মোজাহার বলে পরিচয় দেন। তখন তিনি পুলিশ লাইন্সে অনেক পরিত্যাক্ত গাড়ির পুরাতন ব্যাটারী রয়েছে ওই ব্যবসায়ীকে জানায়। সেগুলো ১২৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি করা হবে। এখন ৫০ হাজার টাকা দিয়ে পুলিশ লাইন্স থেকে ব্যাটারীগুলো বুঝে নিয়ে অবশিষ্ট টাকা বিকেলে দিলে হবে বলে জানায়।

এই কথা শুনে আজিজুর রহমান তার দোকানের মিস্ত্রী মো. আমিনুল ইসলামকে ৫০ হাজার টাকাসহ অটোরিক্সা যোগে তার সাথে পুলিশ লাইন্সে পাঠান। এসআই পরিচয়দানকারী ওই ব্যক্তি সিএন্ডবির মোড়ে পৌঁছিয়ে কৌশলে আমিনুলের কাছ থেকে তার মোবাইল নম্বর ও টাকা নিয়ে সেখানে নামিয়ে দেয়। সেখানে আমিনুলকে দাঁড়াতে বলে সে এসপি স্যারের কাছ ভাউচার নিয়ে আসি বলে সাহেব বাজারের দিকে চলে যায়।

কিছুক্ষণ পর প্রতারক মোবাইল করে আমিনুলকে পুলিশ লাইন্সের গেটে যেতে বলে। আমিনুল কথামত পুলিশ লাইন্সের গেটে গিয়ে অপেক্ষা করতে থাকে। দীর্ঘ সময় অপেক্ষঅর পর তাকে না পেয়ে মোবাইল নম্বরে ফোন দিলে মোবাইল বন্ধ পায়।

আমিনুল ইসলাম বিষয়টি আজিজুর রহমানকে অবহিত করলে সে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নিয়ে জানতে পারে, এসআই পরিচয়দানকারী আসামি মোজাহার আরো অনেকের সাথে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। উক্ত অভিযোগে পরিপ্রেক্ষিতে নগরীর রাজপাড়া থানায় একটি নিয়মিত মামলা রুজু হয়।

পরে নগর পুলিশের উপ-পুলিশ কমিশনার (বোয়ালিয়া জোন) মো. সাজিদ হোসেনের তত্ত্বাবধানে রাজপাড়া থানা পুলিশের একটি বিশেষ টিম আসামির নাম ঠিকানা সনাক্ত করে তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান শুরু করেন। এরপর গত শুক্রবার রাত পৌনে ১১ টার দিকে আরএমপি সাইবার ক্রাইম ইউনিটের সহকারি পুলিশ কমিশনার উৎপল কুমার চৌধুরী তথ্য প্রযুক্তি বিশ্লেষণ এবং সিসি ক্যামেরার ভিডিও ফুটেজ পর্যালোচনা করে রাজপাড়া থানার ওসি মো. জাহাঙ্গীর আলমের সার্বিক দিক নির্দেশনায় এসআই কাজল কুমার নন্দী ও তার টিম গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান পরিচালনা করে নাটোর জেলার নলডাঙ্গা থানার হলুদঘর গ্রামের বাড়ি থেকে প্রতারক মো. জাকির হোসেন গেপ্তার করে।

গ্রেপ্তারকৃক এই প্রতারকের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে  জানানো হয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here