ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি, গৃহবধূর আত্মহত্যার চেষ্টা

ফেসবুকে আপত্তিকর ছবি, গৃহবধূর আত্মহত্যার চেষ্টা
প্রতীকী ছবি।

অনলাইন ডেস্কঃ গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় এক গৃহবধূকে তার প্রেমিকের সাথে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করেছে লোকজন। এ ঘটনায় ওই প্রেমিককে দুই লাখ টাকা জরিমানা করেছে স্থানীয় সূত্রাপুর ইউপি সদস্য ও মাতবররা। ঘটনার কয়েক ঘণ্টা পর গৃহবধূর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়লে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন তিনি।

এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগী পরিবার সূত্রে জানা গেছে, ওই গৃহবধূর গত দুই মাস আগে কালিয়াকৈর উপজেলার মেদীআশুলাই দেওয়ানপাড়া এলাকায় বিয়ে হয়। কিন্তু বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে এবং ফুসলিয়ে তাকে স্বামীর বাড়ি ছাড়তে বাধ্য করেন প্রেমিক সাগর মিয়া।

শুধু তাই নয়, গত বুধবার সকালে লতিফপুর এলাকায় একটি ভাড়া কক্ষে অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগে ওই গৃহবধূ ও প্রেমিক সাগর মিয়াকে আটক করে এলাকাবাসী। এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্য (মেম্বার) মতিউর রহমানকে খবর দিয়ে আটক দুজনকে তার জিম্মায় দেওয়া হয়।

পরে বৃহস্পতিবার রাতে ওই মেম্বার ও স্থানীয় কয়েকজন মাতবর মিলে ভুক্তভোগী দুই পরিবারকে নিয়ে মেম্বারের বাড়িতে সালিশ বৈঠক করে। ওই বৈঠকে ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে প্রেমিক সাগরকে ২ লাখ টাকা জরিমানার রায় দেওয়া হয়। এর মধ্যে নগদ ৫০ হাজার টাকা ওই মেম্বার হাতিয়ে নিলেও গৃহবধূকে কোনো টাকা দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে।

জরিমানার বাকি দেড় লাখ টাকার জন্য সাগরের পরিবারকে ১০ দিনের সময় বেধে দেওয়া হয় সালিশ বৈঠকে। ওই সালিশ বৈঠক শেষের কয়েক ঘণ্টা পরই গৃহবধূর আপত্তিকর ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। বিষয়টি জানতে পেরে শনিবার সকালে ওই গৃহবধূ বিভিন্ন প্রকারের অতিরিক্ত ওষুধ সেবন করে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। বিষয়টি টের পেয়ে পরিবারের লোকজন তাকে উদ্ধার করে প্রথমে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। সেখানে অবস্থার অবনতি হলে তাকে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর কুমুদিনী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। খবর পেয়ে কালিয়াকৈর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলেও অজ্ঞাত কারণে ফিরে আসে।

অভিযুক্ত প্রেমিক সাগরের বাবা আলী হোসেন জানান, গ্রামবাসী বসে বিষয়টি সমাধান করেছে। এর জন্য ২ লাখ টাকা জরিমানা করা হলে ৫০ হাজার টাকা দেওয়া হয়েছে। বাকি টাকা কয়েকদিন পর দেব।

ইউপি সদস্য মতিউর রহমান জানান, বিষয়টি মীমাংসার জন্য সালিশ বৈঠকে ছেলে পক্ষকে দুই লাখ টাকা জরিমানা করা হয়েছে। এর মধ্যে আমার কাছে ৫০ হাজার টাকা জমা আছে। বাকি টাকার জন্য সময় দেওয়া হয়। কিন্তু সালিশ বৈঠক শেষে কয়েক ঘণ্টা পর ওই গৃহবধূর অশ্লীল ছবি ছড়িয়ে পড়লে তিনি আত্মহত্যার চেষ্টা করেন।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আকবর আলী খান জানান, ওই ঘটনাটি শুনে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়। তবে এ ঘটনায় লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তাজওয়ার আকরাম সাকাপি ইবনে সাজ্জাদ জানান, জরিমানা করা কোনো ইউপি সদস্যের এখতিয়ার নেই। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here