বিকেলের নাস্তায় কাঁচা কলার চিপস

0
44
বিকেলের নাস্তায় কাঁচা কলার চিপস

অনলাইন ডেস্কঃ চিপস তো আমরা সবাই খেয়েছি। কিন্তু কাঁচা কলার চিপস খেয়েছেন কখনো? কাঁচা কলার চিপস অত্যন্ত সুস্বাদু একটি খাবার। আলুর চিপসের মতই মজাদার, কিন্তু পুষ্টিগুণটা অনেক বেশি। খুব সহজেই বাসাতেই বানিয়ে ফেলতে পারবেন কাঁচা কলার চিপস। ভালো করে ভাজি করে প্যাকেটে রেখে দিলে বেশ কয়েক দিন পর্যন্ত খাওয়া যায় এই চিপস। আসুন দেখে নেয়া যাক কাঁচা কলার চিপস বানানোর সহজ রেসিপি।

কাঁচা কলার মজাদার চিপস রেসিপি

পুষ্টিগুণঃ

প্রতি ১০০ গ্রাম কাঁচা কলায় আছে জলীয় অংশ ৬২.৭০ গ্রাম, মোট খনিজ পদার্থ ০.৯০ গ্রাম, আঁশ ০.৪০ গ্রাম, খাদ্য শক্তি ১০৯ কিলোক্যালরি, আমিষ ০.৭০ গ্রাম, চর্বি ০.৮০ গ্রাম, শর্করা ২৫ গ্রাম, ক্যালসিয়াম ১৩ মিলিগ্রাম, লৌহ ০.৯০ মিলিগ্রাম, ০.১০ মিলিগ্রাম ভিটামিন বি-১, ০.০৫ মিলিগ্রাম ভিটামিন বি-২ ও ২৪ মিলিগ্রাম ভিটামিন সি।

উপকরণঃ

৩/৪ টা বড় আকারের কাঁচা কলা

১/৪ চা চামচ হলুদ গুড়া

গোল মরিচের গুড়া (স্বাদ অনুযায়ী)

পরিমাণ মত লবণ

তেল ভাজার জন্য

প্রস্তুত প্রণালীঃ

– কলার খোসা ছাড়িয়ে নিন।

– একটা বাটিতে পরিমাণ মতো পানি নিন। পানিতে কিছুটা লবণ গুলিয়ে নিন।

– এবার কাঁচা কলাগুলোকে ধারালো ছুরি দিয়ে পাতলা করে কেটে সরাসরি পানিতে ফেলুন।

– এভাবে ৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। তাহলে কলার কষ ছেড়ে যাবে।

– কলাগুলোকে পানি থেকে তুলে কিচেন টিস্যুতে রেখে শুকিয়ে নিন।

– এবার কলার সাথে হলুদ মাখিয়ে নিন।

– চুলায় কড়াইয়ে তেল দিয়ে মাঝারী আঁচে গরম করে নিন।

– তেল গরম হলে কলার টুকরাগুলোকে ডুবো তেলের মধ্যে ছেড়ে দিতে হবে।

– তেলে কলা দেয়ার সাথে সাথে নেড়ে দিন। নাহলে একটা কলার টুকরার সাথে অন্যটা লেগে যাবে।

– কলার টুকরাগুলো অল্প তাপে মচমচে করে ভেজে নিতে হবে। বাদামী রঙ হলে নামিয়ে ফেলুন।

– কিচেন টিস্যুতে রেখে অতিরিক্ত তেল শুষিয়ে ফেলুন।

– চিপসের উপর গোল মরিচের গুড়া ও লবণ ছিটিয়ে পরিবেশন করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here